৬ ডিসেম্বর কুড়িগ্রাম পাক হানাদারমুক্ত দিবস পালন


কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রাম পাকিস্তানী হানাদার মুক্ত দিবস ৬ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে মুক্তিযোদ্ধারা পাকসেনা, রাজাকার ও আলবদরদের হটিয়ে কুড়িগ্রামকে মুক্ত করে। দিবসটি উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট বর্ণাঢ্য র‌্যালি, পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক দলগুলো অংশগ্রহণ করে।
স্বাধীনতার বিজয়স্তম্ভে আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডল, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহবায়ক শ্যামল ভৌমিক প্রমুখ।
মুক্তিযুদ্ধকালিন সময়ে ৫ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধারা কুড়িগ্রাম মুক্ত করতে পাক হানাদার বাহিনীকে চারিদিক থেকে ঘিরে ফেলে সাঁড়াশি আক্রমন চালায়। পরে ৬ ডিসেম্বর ভোর থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের পাশাপাশি মিত্র বাহিনী বিমান হামলা চালায়। এসময় টিকতে না পেরে পিছু হটে পাকিস্তানী বাহিনী। সেদিন বিকেলে ৬নং সেক্টরের কোম্পানী কমান্ডার বীরপ্রতীক আব্দুল হাই মুক্তিযোদ্ধাদেরকে নিয়ে প্রথমে কুড়িগ্রাম শহরের ওভারহেট পানির ট্যাংকে স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলন করে কুড়িগ্রামকে হানাদারমুক্ত ঘোষণা করেন।
 

 


footer logo
Powered by DHORLA IT